মরণের পারে pdf বই ডাউনলোড

61

মরণের পারে pdf বই ডাউনলোড। মরণের পারে এক রহস্যময় দেশ যে দেশে সুর্য নাই, চন্দ্র নাই, নক্ষত্র নাই, যে দেশে স্থুল নাই, কেবলই সূক্ষ্ম-ভাবনা ও সূক্ষ্মচিন্তার রাজ্য। এই চিন্তার রাজ্যকেই মনোরাজ্য বা স্বপ্ন রাজ্য বলে। মান্ডুক্য-উপনিষদে এই মনোরাজ্যের কিছুটা আভাস দেওয়া হয়েছে বিশেষ হি স্থুলভুঙনিত্যং তৈজসং প্রবিবিক্তভুক। স্থুলং তর্পয়তে বিশ্ব প্রতিবিক্তন্তু তৈজসম।

বিম্ব বা বিরাট বিশ্বচরাচররূপে বাস্তব প্রকাশ। এটি ইন্দ্রিয়ের জগৎ, স্থুলে ভোগের জগৎ, কিন্তু তৈজস বা মনের জগৎ তা থেকে ভিন্ন। কথা এই যে, শব্দ-স্পর্শ রূপ-রস-গন্ধের যে স্থুল ভোগের জগৎ সেখানে ইন্দ্রিয়ের সাহায্যে মানুষ ও সকল প্রাণী স্থুলবিষয়ই ভোগ করে, কিন্তু মৃত্যুর পর সকলের সুক্ষ্মশরীর যায় স্বপ্নলোক বা মানসলোকে।

আরও বই দেখুনঃ

মনেরই সেখানে বিশাল-চলা, বসা খাওয়া দেওয়া- নেওয়া।এই সমস্ত পরলোকবাসী জীবাত্মা ভোহ করে মরে, তাই মনেরই সেটি রাজ্য, মনেরই সেটি লোক।ইহলোক স্থুল ইন্দ্রিয়ের রাজ্যে, আর পরলোক সুক্ষ্মমনের ও মানসিক সংস্কারের রাজ্যে।

ইহলোক ও পরলোক তাই জাগ্রত অবস্থা ও সপ্ন অবস্থা। জগতে অবস্থার মানুষ যে যে কাজ করে, স্বপ্ন অবস্থার তাদেরই সংস্কার বলে।মনোলোকে থাকে ও জীবাত্মা সুক্ষ্মদেহে সেই সব ভোগ করে। সুক্ষস্তির রাজ্য জাগ্রত ও স্বপ্ন এই দুটি রাজ্যের পারে।

জাগ্রত -অবস্থায় সূক্ষ্মতৃ থাকে, স্বপ্ন অবস্থায় স্থুলবস্তুরুসৃক্ষ্ম সংস্কার থাকে, আর জীবাত্মা সুষুতিপ্তর অবস্থায় কারণ-অজ্ঞানের সংগে থাকে ।বীজ নিদ্রাষুতং প্রাজ্ঞঃ বীজ বা কারণ-অজ্ঞান হোল যে অজ্ঞানের জন্য জীবাত্মা পুনরায় পৃথিবীতে জন্ম গ্রহন করে, ভোগ করে, ও সৃষ্টি করে সকল কিছু ভোগের বস্তু বাসনা-কামনার প্রেরণায়।

এই কারণ-অজ্ঞানের পরেই বিশুদ্ধ-আত্মার জ্ঞানময় ও আনন্দময় রাজ্য।বিশুদ্ধ আত্মার জ্ঞানময় রাজ্যেকে বলে তুরষী বা চতুর্থ। চতুর্থ কিনা স্থুলে বা জাগ্রত, সুক্ষ্ম বা স্বপ্ন ও কারণ বা সুষুপ্তি অবস্থার অতীত। যদি আর ও পড়তে চান তাহলে ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

নিচে  মরণের পারে  এর স্ক্রিনশট ও ডাউনলোড লিংক দেওয়া হলোঃ

মরণের পারে pdf বই ডাউনলোড

প্রকাশকঃ       
বইয়ের ধরণঃ  উপন্যাস  বিষয়ক 
বইয়ের সাইজঃ  14.6 MB
প্রকাশ সালঃ  ১৯৫৩
বইয়ের লেখকঃ   
অনুবাদঃ   স্বামী প্রজ্ঞানন্দন-গং


ডাউনলোড সার্ভার-১ঃ Download Now


বই ডাউনলোড করতে কোন সমস্যা হলে অথবা নতুন কোন বইয়ের জন্য রিকুয়েস্ট করতে আমাদের Facebook Page অথবা Facebook Group এ জয়েন করুন